আজ ১২ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৭শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

মুসল্লিদের ভোগান্তি: লামা উপজেলায় মডেল মসজিদ নির্মাণে স্থবিরতা

 
মোঃ আলমগীর, বিশেষ প্রতিনিধিঃ
বান্দরবানের লামায় মডেল মসজিদ নির্মাণে স্থবিরতা। প্রায় বছর খানেক ধরে নামাজ আদায়ে মুসল্লিদের দুর্ভোগ। দ্রæত সময়ে মধ্যে কাজ শুরুর দাবী উঠেছে।
দেশব্যাপি প্রতিটি জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে একটি করে ৫শ ৬০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থাপন শীর্ষক প্রকল্প’র আওতায় লামা উপজেলায় নির্মাণ শুরুতেই কাজের স্থবিরতা দেখা দেয় মডেল মসজিদের।
উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্সে, কোর্ট মসজিদ নামে খ্যাত পুরাতন মসজিদে মুসল্লির সংখ্যা শতাধিক ছিলো। প্রকল্প অনুমোদিত নতুন নকসায় মসজিদটি নির্মাণের জন্য ২০১৯ সালে ভেঙ্গে ফেলা হয়। ১৪ কোটি টাকা ব্যায়ে তিনতলা বিশিষ্ট এই কমপ্লেক্সের কাজ ২০২০ সালের মধ্যে সমাপ্তি হওয়ার সরকারি ঘোষণা ছিলো।
পুরাতন মসজিদটি নির্মিত হয়েছিল ১৯৮৫ সালে। দীর্ঘকাল ধরে এলাকার মুসল্লিরা ওই মসজিদে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করতেন। পরাতর ভবন ভেঙ্গে ফেলায়, নতুন ভবন হওয়া পর্যন্ত অস্থায়ী মসজিদ হিসেবে ব্যাবহার হচ্ছে, লামা উপজেলা প্রশাসনের অফির্সাস ক্লাবের লাইব্রেরী কক্ষ। কক্ষটি ছোট হওয়ায় নামাজ আদায়ে মুসল্লিদের ভোগান্তি হচ্ছে।
কেন কোন কারণে নির্মাণাধিন মসজিদ কমপ্লেক্স এর কাজ শুরুতে বন্ধ হয়ে গেল; এর জবাব মিলছেনা কোন দপ্তরে।
অসমর্থিত সূত্রে জানাযায়, সারা দেশে জেলা পর্যায়ে ৪ তলা ও উপজেলার জন্য ৩ তলা এবং উপকূলীয় এলাকায় ৪ তলা মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতি কেন্দ্র নির্মানের কার্যাদেশ প্রাপ্ত হন, ইতোপূর্বে গ্রেফতারকৃত বহুল আলোচিত জিকে শামীম এর প্রতিষ্ঠান।
জিকে শামীম ক্যাসিনো স্কেন্ডালে আটক হওয়ায়, তার নিয়ন্ত্রণাধিন বা মালিকানায় প্রতিষ্ঠানগুলোতেও স্থবিরতা দেখা দেয়। এরই ধারাবাহিকতায় লামাসহ দেশের বেশ কয়েকটি মডেল মসজিদ কমপ্লেক্স নির্মাণ কাজে প্রভাব পড়েছে।মুজিব শত বর্সের তাৎপর্যতা রক্ষায়, মডেল মসজিদ নির্মাণে স্থবিরতা নিরসনে সংশ্লিষ্টরা আন্তরিক হবেন, এমনটি প্রত্যাশা স্থানীয়দের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই ক্যাটাগরির আরও দেখুন