আজ ১১ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৫শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

খাগড়াছড়িতে পবিত্র মিলাদুন্নবী (সাঃ) উপলক্ষে সীরাতুন্নবী (সঃ) সেমিনার অনুষ্ঠিত


আবুল হোসেন রিপন, খাগড়াছড়িঃ
বিশ্বনবী হজরত মুহাম্মদ (সা.)-এর জন্ম ও ওফাত দিবস পবিত্র মিলাদুন্নবী (সঃ) উপলক্ষ্যে খাগড়াছড়ি ক্বওমী মাদ্রাসা ও ওলামা ঐক্য পরিষদ এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে সিরাতুন্নবী (সঃ) এর আয়োজন করা হয়েছে।
বৃহস্পতিবার বিকাল তিনটায় খাগড়াছড়ি অফিসার্স ক্লাবে খাগড়াছড়ি ক্বওমী মাদ্রাসা ও ওলামা ঐক্য পরিষদের সভাপতি মাওলানা ক্বারী ওসমান গণির সভাপতিত্বে এই সীরাতুন্নবী (স:) অনুষ্ঠিত হয়।
সেমিনারে বক্তব্য রাখেন- আল জামীয়া ইসলামিয়া পটিয়ার সহকারী পরিচালক আল্লামা ওবায়দুল্লাহ হামজা, মাওলানা উবাইদুর রহমান হুজাইফী,ও খাগড়াছড়ি ক্বওমী মাদ্রাসা ও ওলামা ঐক্য পরিষদ এর প্রধান উপদেষ্টা মাওলানা হাবীবুল্লাহ জাহাঙ্গীর।উক্ত সভায় জেলা উপজেলার সকল দ্বায়িত্ববান কর্মীসহ জেলার ধর্মপ্রাণ মুসলিম তৌহিদি জনতা উপস্থিত ছিলেন।
সেমিনারে জেলা ক্বওমী মাদ্রাসা ও ওলামা ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মুফতি রবিউল ইসলাম শামীম বলেন, ১৪৫০ বছর আগের এই দিনে আরবের মরু প্রান্তরে মা আমিনার কোল আলো করে জন্ম নিয়েছিলেন সৃষ্টি জগতের জন্য রহমত প্রিয় নবী (সঃ) এবং ৬৩ বছর বয়সে ১২ই রবিউল আউয়ালেই তিনি ইন্তেকাল করেন।
হজরত মুহাম্মদ (সা.) পৃথিবীতে এসেছিলেন তাওহিদের মহান বাণী এবং বিশ্ব শান্তির পয়গাম নিয়ে। তিনি মানুষকে আহবান করেছেন শান্তির ধর্ম ইসলামের দিকে। তাঁর আবির্ভাব এবং শান্তির বাণী প্রচার সারা বিশ্বে আলোড়ন সৃষ্টি করে। আরব সমাজ যখন পৌত্তলিকতার পূজা নিয়ে এক অদ্ভুত অন্ধকারে ডুবে ছিল। তখন মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.)কে সারা বিশ্বজগতের জন্য রহমতস্বরূপ পাঠিয়েছিলেন সর্বশক্তিমান মহান আল্লাহ।
৪০ বছর বয়সে নবুয়ত লাভ করেন মহানবী (সা.)। বিশ্ববাসীকে তিনি মুক্তি ও শান্তির পথে আসার আহ্বান জানান সারাটি জীবন। সব ধরনের কুসংস্কার, গোঁড়ামি, অন্যায়, অবিচার ও দাসত্বের শৃঙ্খল ভেঙে মানবসত্তার চিরমুক্তির বার্তা বহন করে এনেছিলেন তিনি।
মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.) দীর্ঘ ২৩ বছর এই বার্তা প্রচার করেন এবং ৬৩ বছর বয়সে মহান আল্লাহর সান্নিধ্যে গমন করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই ক্যাটাগরির আরও দেখুন