আজ ২৪শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৯ই ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

চাঁপাইনবাবগঞ্জের সদর আসনের এমপি হারুনকে আওয়ামী লীগের অবাঞ্ছিত ঘোষণা

 
ফয়সাল আজম অপু, বিশেষ প্রতিনিধিঃ
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মঞ্চে জুতা-সেন্ডেল পরে উঠে সভা করার অপরাধে চাঁপাইনবাবগঞ্জে প্রতিবাদ মিছিল ও পথসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা বিএনপি দলীয় সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে। অবিলম্বে বিএনপি যদি ক্ষমা না চায় তাহলে তাদেরকে শহর থেকে উৎখাত করার ঘোষণাও দেয় বক্তারা।
২১ ডিসেম্বর সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার দিকে আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন সহযোগী অঙ্গ সংগঠনের শতাধিক নেতাকর্মীদের উপস্থিতিতে প্রতিবাদ মিছিলটি হয়।
শহীদ সাটু হল মার্কেটের সামনে থেকে মিছিলটি বের হয়ে নিউমার্কেট, ফুড অফিস মোড়, বিএনপি কার্যালয় মোড়, হুজরাপুর, বড় ইন্দারা, করনেশন রোড, নিমতলা হয়ে নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজের সামনে বঙ্গবন্ধু মুক্ত মঞ্চের সামনে এসে শেষ হয়।
এ সময় পথসভায় সঞ্চালনা করেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ফায়জার রহমান কনক।
এতে বক্তব্য দেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শাখার দপ্তর সম্পাদক ও সাবেক জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আরিফুর রেজা ইমন,
চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক শরিফুল আলম, সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. মিজানুর রহমান, দপ্তর সম্পাদক অংকুর জোবায়ের, যুবলীগ নেতা শাহনেওয়াজ দুলাল।
জেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক মুসফিকুর রহমান টিটু, সদর উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মো. রুহুল আমিন, সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন রাসেল, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও ২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর জিয়াউর রহমান আরমান, জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সাব্বির আহমেদ, আলমগীর কবিরসহ ছাত্রলীগ, সদর উপজেলা ছাত্রলীগ, পৌর ছাত্রলীগ, শাহনেয়ামতুল্লাহ কলেজ ছাত্রলীগ, নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজ ছাত্রলীগসহ নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
প্রতিবাদ সভায় হারুনুর রশিদ হারুন এমপিসহ বিএনপির নেতাকর্মীরা জুতা-সেন্ডেল পরে বঙ্গবন্ধু মুক্ত মঞ্চে উঠে সভা ও বক্তব্য দেয়ার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান বক্তারা।
জুতা পরে বঙ্গবন্ধু মুক্ত মঞ্চে উঠা মানে শেখ মুজিবুর রহমানকে অপমান, অসম্মান করা, যা ইচ্ছে করেই করেছেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব হারুন এমপি ও তার কর্মী সমর্থকরা। এ জন্য হারুন এমপি ও তার লোকজনকে জাতির সামনে ক্ষমা চাইতে হবে। আর তা না করলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেবেন বলে হুঁশিয়ার করে দেন প্রতিবাদ সভায় বক্তারা।
এ বিষয়ে হারুনুর রশিদ হারুন এমপি এ প্রতিবেদককে জানান, দলীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে আমরা শান্তিপূর্ণ কর্মসূচী শেষ করি। বঙ্গবন্ধু মুক্ত মঞ্চে জুতা সেন্ডেল পরে উঠার অজুহাতে বিএনপির বিরুদ্ধে আমার বিরুদ্ধে মিছিল হয়েছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে আমরা শ্রদ্ধা ও সম্মান করি। তাকে হেয় করা বা অপমান করার প্রশ্নই আসে না।
হারুন এমপি জানান, আমি প্রশ্ন রাখতে চাই? এটা বঙ্গবন্ধু মুক্ত মঞ্চ। এখানে কোথাও লেখা নেই জুতা সেন্ডেল পরে উঠা নিষেধ। এখানে লেখা নেই যে শুধু আওয়ামী লীগ সভা সমাবেশ করবে। অসম্মান বা অপমান করার মন মানসিকতা নিয়ে এটা আমরা করিনি।
এদিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও তীব্র নিন্দা, ক্ষোভ ও প্রতিবাদ জানিয়ে অনেকে পোস্ট করেছেন। এ বিষয়ে
পৌর যুবলীগের সদস্য জিলহাজ বিশ্বাস প্রতিবেদককে জানান বিএনপির অনুষ্ঠান চলাকালীন সময়ে হারুন এমপি সহ বিএনপি নেতা কর্মীরা যখন জুতা সেন্ডেল পরিধান করে মঞ্চে উঠে, আমি প্রতিবাদ করলেও তারা জুতা সেন্ডেল খুলে মঞ্চে ওঠেন নি ।
অনেকে তাদের নিজস্ব ফেসবুক আইডিতে বলেছেন, সারাদেশের মানুষ যেখানে শ্রদ্ধাভরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে স্মরণ করে, সেখানে বিএনপি বঙ্গবন্ধুকে অবমাননা করার দুঃসাহস দেখায় কেমন করে? একজন জাতীয় সংসদ সদস্য, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যানের এমন কর্মকান্ডের জন্য জনগণের কাছে ক্ষমা চাইতে হবে।
এমর্মে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আব্দুল ওদুদ বলেন এটি একটি দুঃখজনক ঘটনা। এ রকম জঘন্যতম আচারনের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। এ ঘটনাটি কেন্দ্রকে জানানো হয়েছে। হারুন যদি জাতির কাছে ক্ষমা না চায় জেলাবাসি কে সঙ্গে নিয়ে তাকে প্রতিহত করা হবে।
উল্লেখ্য, চাঁপাইনবাবগঞ্জে বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে হত্যাকান্ডের প্রতিবাদ জানিয়ে কালোব্যাচ ধারণ, প্রতিবাদ মিছিল ও সমাবেশ করে বিএনপি ও এর বিভিন্ন সহযোগী সংগঠন সোমবার সকালে। সেখানে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি থাকা মুক্তমুঞ্চে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য দেন, বিএনপির যুগ্ন মহাসচিব ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ সদর আসনের সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদসহ অন্যান্য বিএনপি নেতারা জুতা সেন্ডেল পায়ে দিয়ে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই ক্যাটাগরির আরও দেখুন