আজ ১২ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৭শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

এবার রাজশাহী বড়বনগ্রাম ভাড়ালীপাড়ায় মানবতার দেয়াল

 
লিয়াকত রাজশাহী ব্যুরোঃ
ওরা অনেকেই কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। কেউ আবার ব্যবসা করেন। কয়েকজন চাকুরীজীবিও আছেন। আছেন সাংবাদিকও।
মানবতার দেয়ালে বিত্তবানরা তাদের অপ্রয়োজনীয় জিনিস রেখে যেতে পারবেন এবং সেখান থেকে প্রয়োজনীয় জিনিস নিয়ে যেতে পারবেন অসহায় সুবিধাবঞ্চিতরা।
এরি ধারাবাহিকতায় বড়বন গ্রাম ভাড়ালীপাড়া সংলগ্ন ৪ রাস্তায় মোড়ে মানবতার দেয়াল এ বিভিন্ন ধরনের পোশাক ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। সেখান থেকে অসহায় ও দুস্থ মানুষের তাদের প্রয়োজনীয় পোশাক নিয়ে ব্যবহার করতে পারবেন।
সামাজিক কল্যাণ সংস্থার সদস্য ও এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ওই দেয়ালে পোশাক রেখে যাচ্ছে। সুবিধাবঞ্চিত ও অভাবগ্রস্ত মানুষ এই শীতের মধ্যে কিছুটা উপকৃত হয় এই কারণে সামাজিক কল্যাণ সংস্থার পক্ষ থেকে এমন উদ্যোগ গ্রহন করা হয়েছে।
শুক্রবার বিকালে বড় বনগ্রাম ভাড়ালীপাড়া ৪ রাস্তার মোড়ে ‘যা আপনার প্রয়োজন নেই তা দিয়ে যান’ ‘যা আপনার প্রয়োজন তা নিয়ে যান’ এ শ্লোগানকে সামনে রেখে উদ্বোধন করা হয়েছে ‘মানবতার দেয়াল’ নামে একটি দেয়াল। এ দেয়ালটির উদ্বোধন করেন শ্রম পরিদর্শক (সেফটি) অফিসার হারুন -অর-রশিদ।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন,রাজশাহী মডেল প্রেসক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ লিয়াকত হোসেন, সামাজিক কল্যাণ সংস্থার সভাপতি, শাহানুর ইসলাম, রাজশাহী বিমান বন্দর স্কুল শিক্ষক আমিরুল ইসলাম রেজা, বিশিষ্ট সমাজ সেবক ফায়সাল আহমেদ, আল-আমিন,আসিফ আহমেদ, শরিফুল ইসলাম চঞ্চল,জালাল উদ্দিন সহ অন্যন্যরা।
সামাজিক কল্যাণ সংস্থার নির্বাহী পরিচালক মোঃ সম্রাট আলী বলেন, সমাজের ধনী ব্যক্তিগণ যদি তাদের ব্যবহারিত অপ্রয়োজনীয় পোশাকগুলো সহায়তা করে তাহলে সমাজের অনেক অসহায় ও দুস্থ মানুষ কিছুটা হলেও উপকৃত হবে তাই সমাজের ধনী ব্যক্তিবর্গ কে এই মহৎ কাজে এগিয়ে আসার জন্য আহ্বান করা হয়। সুবিধা বঞ্চিত ও অভাবগ্রস্ত মানুষের পরিধেয় কাপড় যোগান দিতেই এটি চালু করা হয়েছে। মানবতার এই দেয়ালটি সবসময়ই চালু থাকবে বলে তিনি জানান। এলাকার ছোট ছোট বাচ্চাদের মধ্যে মানবতা তৈরির লক্ষেই মানবতার দেয়াল নামে এই দেয়ালটি উদ্বোধন করা হয়েছে।
সুবিধাবঞ্চিত সেই সব মানুষদের মুখে হাসি ফুটানোই দেয়ালের উদ্দেশ্য। মানবতার দেয়াল প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে যদি একজন মানুষও উপকৃত হয় তাহলেই আমরা সার্থক বলে মনে করেন সংগঠনটির সদস্যরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই ক্যাটাগরির আরও দেখুন