আজ ২০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৫ই ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

রাজশাহীর বাঘায় ইমো হোয়াটস অ্যাপ হ্যাকিংয়ের প্রতারণায় সর্বশান্ত হচ্ছে মানুষ

 
লিয়াকত রাজশাহী ব্যুরো:
রাজশাহীর বাঘায় ইমো হোয়াটস অ্যাপ হ্যাকিংয়ের প্রতারণা শিকার হয়ে সর্বশান্ত হচ্ছে মানুষ। স্থানীয়দের অভিযোগ দক্ষিণ গাওপাড়া গ্রামের দুলাল হোসেনের ছেলে মোহন আলী (২৩) ও বলিহার হাজীপাড়া গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে রহুল আমিন (২৬) দীর্ঘদিন থেকে এলাকায় ইমো হোয়াটস অ্যাপ হ্যাকিংয়ের প্রতারণা করছে। তারা ভূয়া ফেসবুক, ইমো হোয়াটস অ্যাপ আইডি খুলে মেয়েলী কন্ঠে কথা বলে প্রতারণা করছে।
উপজেলার পন্ডিত পাড়া গ্রামের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক যুবক জানান, প্রবাসী পরিবার, আত্মীয়-স্বজন ও বন্ধু-বান্ধবদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে বিভিন্ন আপস ইমো, হোয়াটসঅ্যাপ, ভাইবার, স্কাইপসহ ব্যবহার করেন। এই সুযোগে তারা প্রতারনা করছে। ইতিমধ্যে তাদের প্রতারনায় অনেকই সর্বশান্ত হয়ে গেছে। মোবাইলে ইমো চালু করা এবং নম্বর অ্যাড করতে ঝামেলা কম হওয়ায় বেশির ভাগ মানুষ ইমো ব্যবহার করে। এক মোবাইল নম্বর দিয়ে একাধিক মোবাইলে ইমো চালু বা ব্যবহার করা যায়। যার কারণে কিছু কুচক্রী মহল সমাজে বা কমিউনিটির মধ্যে পরিচিত ব্যবসায়ীদের টার্গেট করে থাকে। তারা প্রবাসীদের বিভিন্ন অফিস বা কোম্পানি থেকে লটারি বিজয়ী হয়েছে অথবা সমস্যার কথা বলে ফোন করে মোবাইলের মেসেজের পাসওয়ার্ড নম্বর চাওয়া হয়। আবার বিভিন্ন গ্রæপ নম্বর অ্যাড করে বারবার গ্রæপে ফোন করে বিরক্ত করা হয়, আবার আপত্তিকর ছবি ভিডিও পাঠানো হয়। গ্রুপ না থাকতে চাইলেও বারবার গ্রপে যুক্ত করা হয়। তিনি আরো জানান, হ্যাকাররা পরিচিত-অপরিচিত নম্বরে বিভিন্ন অজুহাত ও বিপদের কথা বলে টাকা হাতিয়ে নেয়।
এ বিষয়ে বাঘা থানার ওসি নজরুল ইসলাম বলেন, ইতিমধ্যেই কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে। তাদের নামে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দিয়ে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। তবে মোহন আলী ও রহুল আমিনের নামে কেউ কোন তথ্য বা অভিযোগ করেনি। তারপরও বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নিব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই ক্যাটাগরির আরও দেখুন