আজ ৪ঠা মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৮ই জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

ধর্মপাশায় বংশীকুণ্ডা ইউপি চেয়ারম্যান আজিম মাহমুদ এর বিরুদ্ধে মানবন্ধনের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন

 
মোবারক হোসাইন ধর্মপাশা সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি
সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলার বংশীকুণ্ডা দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান আজিম মাহমুদ ও তাঁর লোকজনদের বিরুদ্ধে বসতবাড়িতে হামলা, ভাঙচুর,মারধর ও নারী নির্যাতনের অভিযোগ এনে ওই ইউনিয়নের জয়পুর গ্রামের সামনের সড়কে গত বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত মানবন্ধনের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে।গতকাল রোববার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ওই ইউনিয়নের সাতুর নতুন বাজারে এলাকাবাসীর ব্যানারে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বংশীকুণ্ডা দক্ষিণ ইউনিয়নের ২নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য মো.হোসেন আলী।
সংবাদ সম্মেলনে উল্লেখ করা হযেছে, গত ইউপি নির্বাচনে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আকরাম হোসেন বিপুল ভোটের ব্যবধানে নির্বাচনে হেরে যাওয়ায় বিজয়ী ইউপি চেয়ারম্যান আজিম মাহমুদের সঙ্গে সাবেক চেয়ারম্যানের লোকজনদের বিরোধের সূত্রপাত হয়। পরাজয়কে সহজে মেনে না নিয়ে সাবেক চেয়ারম্যানের লোকজন এলাকায় চুরি, চিনতাইসহ নানা অসামাজিক কার্যক্রমে জড়িয়ে পড়ে। এ সবের তীব্র প্রতিবাদ করে আসছিলেন চেয়ারম্যান আজিম মাহমুদ। ওই ইউনিয়নের জয়পুর গ্রামের সামনের সড়ক সংলগ্ন সেতুর উপর গত ২০ডিসেম্বর সন্ধ্যা ছয়টার দিকে মোটরসাইকেল থামিয়ে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান প্রয়াত আকরাম হোসেনের ছোট ভাই মজিবুর রহমান,সাইদুর রহমান, সবেক চেয়ারম্যানের ছেলে কাঞ্চন, ভাতিজা রাকিব, পিয়াস,সাগর, মিশু সমবেত হয়ে একই ইউনিয়নের সাতুর গ্রামের আব্দুল ওয়াদুদের ছেলে মোটরসাইকেল চালক সৌরভ মিয়া (২২) কে মারধর করেন। এ সময় তাঁর কাছ থেকে ৭৭হাজার ৫০০টাকা জোর পূর্বক তারা ছিনিয়ে নেয়। চিৎকার শুনে ১৫/২০জন লোক তাৎক্ষনিকভাবে ঘটনাস্থলে এসে উপস্থিত হয়ে মজিবুর রহমান (৫৮) ও সাইদুর রহমান (৫০)কে আটক করে। ছিনতাইয়ের ঘটনায় জড়িত অন্যান্য সঙ্গীরা সেখান থেকে দ্রুত সটকে পড়ে। ছিনতাই করা টাকা ফেরত দেওয়ার অঙ্গীকার করায় আটক হওয়া ওই দুজন গ্রামবাসীর কাছে মুচলেকা দিয়ে ছাড়া পান। এ ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে ও তাঁদের অপকর্মকে ঢাকতে চেয়ারম্যান আজিম মাহমুদ ও তাঁর লোকজনকে সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার উদ্দেশ্যে ২০ডিসেম্বর রাতে জয়পুর গ্রামের বসতবাড়িতে হামলা,ভাঙচুর ও নারী নির্যাতনের কল্পকাহিনী সাজানো হয়েছে। এই মিথ্যা,বানোয়াট ও ভিত্তিহীন ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ইউপি চেয়ারম্যান আজিম মাহুমুদ,মধ্যনগর থানা আওয়ামী লীগের সদস্য আব্দুল আজীজ, মনোয়ার হোসেন,শাহান মিয়া, বংশীকুণ্ডা দক্ষিণ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক,সাধারণ সম্পাদক শইলেন সরকার, উপজেলা প্রেসক্লাবের সহসভাপতি গিয়াস উদ্দিন রানা, সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক এনাম,সিনিয়র সাংবাদিক সালেহ আহমদ, যুগ্ম সম্পাদক সেলিম আহমেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক ফারুক আহমেদ, সাংবাদিক মোবারক হোসাইন প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই ক্যাটাগরির আরও দেখুন