আজ ২৪শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৯ই ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

এবার ঈদের পর সরকারের সাথে পাঞ্জা লড়বেন মান্না

এবার ঈদের পর সরকারের সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে বোঝাপড়া করার ঘোষণা দিয়েছেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক সাবেক আওয়ামী লীগ নেতা মাহমুদুর রহমান মান্না।
 
আজ বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে প্রতীকী অবস্থান কর্মসূচিতে ঘরে ঘরে খাদ্য পৌঁছে দেয়ার দাবিতে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি এমন ঘোষণা দেন।
একই সময়ে তিনি দরিদ্রদের মধ্যে বিতরণের জন্য প্রধানমন্ত্রীর সাড়ে ১০ কোটি টাকা বরাদ্দের সমালোচনা করেন। ‘ঈদের পর আন্দোলন’ বিষয়টি গত কয়েক বছর ধরে রাজনৈতিক অঙ্গনে ‘রসিকতা’ হিসেবে ব্যবহার হয়ে আসছে।
 
আওয়ামী লীগ সরকারের টানা তৃতীয় মেয়াদের প্রথম মেয়াদের শেষ দিকে এবং দ্বিতীয় মেয়াদের শুরুতে বিএনপির নেতারা একাধিকবার ঈদের পরে সরকারবিরোধী চূড়ান্ত আন্দোলনের হুমকি দিয়েছিলেন। তারা বলেছিলেন, ঈদের পর তীব্র আন্দোলন করবেন, তবে পরে তেমন কোনো কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়নি।
 
এ সময় দরিদ্রদের মধ্যে বিতরণের জন্য সাড়ে ১০ কোটি টাকা বরাদ্দ করায় প্রধানমন্ত্রীর সমালোচনা করেন বক্তারা। এই সিদ্ধান্তকে জনগণের প্রতি তামাশা বলে উল্লেখ করেন জাফরুল্লাহ চৌধুরী।
 
অন্যদিকে, মান্না দরিদ্র পরিবারের জন্য ‘মাত্র’ ১০ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে জনগণের কাছে দুঃখ প্রকাশের আহ্বান জানান।
 
তবে করোনা ভাইরাসের মধ্যে এটিই একমাত্র সহায়তা নয়। গত বছরের মতোই প্রান্তিক পর্যায়ের ৩৫ লাখ মানুষকে আড়াই হাজার টাকা করে দেয়া হবে। কাজ হারানো শ্রমিকদের জন্যও আলাদা বরাদ্দ আছে। আরও নানা সহায়তা প্রকল্প আছে সরকারের। ৪৫ লাখ মানুষকে খাদ্য সহায়তাও দেয়া হবে।
 
৪৫ লাখ পরিবারের কাছে খাদ্য সহায়তা পৌঁছানোর স্পষ্ট রূপরেখা জনগণের সামনে উন্মোচনের দাবিও জানান মান্না। বলেন, ‘দাবি না মানলে ঈদের পর সরকারের সাথে পাঞ্জা লড়া হবে।’
 
গণসংহতি আন্দোলনের আহ্বায়ক জোনায়েদ সাকি বলেন, ‘বাংলাদেশে লকডাউন দিতে হলে মানুষের খাদ্য নিশ্চিত করে দিতে হবে। সেটা না করে লকডাউন দেয়া প্রতারণা।’
 
এছাড়াও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক দিলারা চৌধুরী ও রেহনুমা আহমেদ, রাষ্ট্রচিন্তার সদস্য দিদারুল ভূইয়াও কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন।
 
এবিএন/জসিম/তোহা

Comments are closed.

     এই ক্যাটাগরির আরও দেখুন